সৈয়দপুর, (নীলফামারী) স্টাফ রিপোর্টার:

১৮৭০ সালে প্রতিষ্ঠিত সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানাটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম কারখানা। আমাদের স্টাফ রিপোর্টার টুইংকেলের পাঠানো তথ্য চিত্রে ডেস্কে আমি রফিক সাথে আছেন মৌরী

নীলফামারীর সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানাটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম কারখানা। এক সময় এই কারখানায় প্রায় ৮ হাজার শ্রমিক কাজ করতো। আশির দশক পর্যন্ত কারখানাটি ছিলো জৌলুসে ভরা। তখন এই কারখানায় মেরামত ছাড়াও নতুন কোচ তৈরি হতো। কারখানার ২৯টি শপে কার্য্যদিবসের ৮ ঘন্টাই কাজ হতো। অনেক সময় শ্রমিকদের দেওয়া হতো অতিরিক্ত সময়ের কাজ। কোনো কিছুরই অভাব ছিলো না এখানে। ছিলো নিজস্ব বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্র। কাঁচামালের অভাব হয়নি কখনোই।
আজ এই চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। বর্তমানে এই কারখানায় চলছে চরম লোকবল সংকট। প্রয়োজনের তুলনায় ৬২ ভাগ কম লোকবল নিয়ে কাজ চলছে। লোকবলের অভাবে আধুনিকিকরনের নামে আনা মেশিনগুলোও চালানো সম্ভব হচ্ছে না। কাঁচামালের অভাবে কার্য্যসময়ের বেশির ভাগ সময়ই কাজ থাকেনা শ্রমিকের হাতে। তাছাড়া প্রতিবছর যে হারে দক্ষ কারিগর অবসরে যাচ্ছেন তাতে করে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে দেখা দিবে দক্ষ কারিগরের অভাব। শ্রমিক/কর্মচারীরা বলছেন,……….. এমনিতেই কাচামালের অভাব তার উপর প্রায় অর্ধেক জনবল নিয়ে আমাদের কাজ করতে হচ্ছে। এতে করে আমাদের উপর পড়ছে অতিরিক্ত কাজের চাপ।  বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সাধারন সম্পাদক ও নব-নির্বাচিত সৈয়দপুর উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন,……………

(ভিডিওতে বিস্তারিত দেখুন, লাইক/শেয়ার এবং সাবস্ক্রাইব করুন)

mktelevision.net/আফরোজ আহমেদ সিদ্দিকী (টুইংকেল)/হাবিব ইফতেখার/শাহিনুর/মৌরী/রফিক

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*